বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ০৫:১৩ পূর্বাহ্ন

জয়নাল হাজারী ছিলেন আপাদ মস্তক প্রেমিক মানুষ

ফেনী প্রতিনিধিঃ এক সময়ের দোর্দণ্ড প্রভাবশালী রাজনৈতিক ব্যক্তি ছিলেন জয়নাল হাজারী। নানা কারণে আলোচিত-সমালোচিত এই প্রবীণ রাজনীতি গড়ফাদারের আখ্যাও পেয়েছিলেন।

আপাত দৃষ্টিতে তাকে লৌহ মানব মনে হলেও তিনি ছিলেন আপাদ মস্তক প্রেমিক মানুষ।
এই প্রেমে ব্যর্থ হয়েই রয়ে যান চিরকুমার। প্রেমিকার ওপর অভিমান করে করেননি সংসার। প্রেমিকার বিচারও চেয়েছিলেন জনসমুক্ষে।

বাংলাদেশের রাজনীতিতে ব্যাপক আলোচিত-সমালোচিত জয়নাল হাজারী আর নেই। মৃত্যুর পর তার রাজনৈতিক জীবন যেভাবে আলোচনায় আসছে তেমনিভাবে সামনে আসছে তার ব্যক্তি জীবনও। কঠোর জয়নাল হাজারীর প্রেমিক চরিত্রকেও স্মরণ করছেন মানুষ।

একটি স্যাটেলাইট টেলিভিশনে প্রকাশ হওয়া টকশো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের নিউজফিডে বারংবার আসছে। যেটিতে হাজারী কথা বলেছিলেন তার প্রেমিকা বিজুকে নিয়ে। হাজারী বলেছেন বিজু ওয়াদা করেছিলো কোনদিন বিয়ে করবেনা তাকে ছাড়া, কিন্তু বিজু বিয়ে করেছে। ওয়াদা ভঙ্গ করেছে। সেকারণে বিজুর বিচার চাই।

জীবনের শেষ দিনগুলোতে অনেকটা নিভৃতচারী হয়ে উঠলেও আলোচনা ও বিতর্ক তাকে পিছু ছাড়েনি। রাজনীতিতে নামিদামি থেকে শুরু করে জনসাধারণ পর্যায়ে বহু মানুষের হৃদয়ে জায়গা করে নিলেও ব্যক্তিগত জীবনে বিজু ছাড়া আর কোনো মানুষ পাননি তিনি, যার সাথে সংসার পাতবেন।

বিভিন্ন সময়ে রাজনীতিকদের ৬০ পেরোনো বয়সে বিয়ে ও ঘর-সংসার করতে দেখা গেলেও এই রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব আমৃত্যুই ছিলেন ‘চিরকুমার’। অবশ্য মৃত্যুর কিছু দিন আগে তিনি বলেছিলেন ধর্ম রক্ষার জন্য হলেও তিনি বিয়ে করতে চান। বিয়ে করবেন, কিন্তু স্ত্রীর সাথে থাকবেন না। ইসলামে বিয়ে ফরজ সেজন্য বিয়ে করতে চাইলেও শেষ পর্যন্ত তা আর হয়ে উঠেনি।

বিয়ে না করার পেছনে ‘বিজু’ নামের চরিত্রটির সঙ্গে এই রাজনীতিকের সম্পর্ক ও বিচ্ছেদের কাহিনি অনেকবারই সামনে এসেছে। নিজের লেখা ‘বিজুর বিচার চাই’ নামের বইতেও ওই নারীর সঙ্গে ব্যক্তিগত জীবনের নানা মুহূর্ত উঠে আসে। বইটি ব্যাপক আলোচনায় এসেছিল।

অপরদিকে পরিবার ও স্বজনরা বলছেন ভিন্ন কথা। সোমবার ফেনী শহরের মাস্টার পাড়ায় জয়নাল হাজারীর বাড়ি শ্রল কুঠিরে গিয়ে কথা হয় তার ভাগিনা শাখাওয়াত হোসেন মন্টু ও আনোয়ার হোসেন শিমুর সাথে। তারা বলছেন তাদের মামা রাজনীতির জন্যই বিয়ে করেন নি। তাদের মা একাদিকবার ভাইকে বিয়ের কথা বলেছেন। তখন জয়নাল হাজারী বলতো রাজনীতি করছি বিয়ের সময় কোথায় পাব। রাজনীতির কারণে বিয়ে করা হবে না।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020  E-Kantha24
Technical Helped by Titans It Solution