সোমবার, ১৪ Jun ২০২১, ০৮:২৪ অপরাহ্ন

উন্নয়ন বাজেটে মেগাপ্রকল্পগুলো যা পাচ্ছে

স্টাফ রিপোর্টারঃ ২০২১-২২ অর্থবছরের উন্নয়ন বাজেট অনুমোদন হতে যাচ্ছে আজ মঙ্গলবার (১৮ মে)। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুমোদন দিলেই আগামী অর্থবছরের উন্নয়ন বাজেট চূড়ান্ত হবে।

এনএইসির বৈঠকে সভাপতিত্ব করবেন প্রধানমন্ত্রী ও এনইসি চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা। গণভবন থেকে তিনি ভার্চুয়ালি বৈঠকে সংযুক্ত থাকবেন। শেরে বাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী ও সচিবরা উপস্থিত থাকবেন।

পরিকল্পনা কমিশনের কার্যক্রম বিভাগ এ উন্নয়ন বাজেট প্রণয়ন করে থাকে। কার্যক্রম বিভাগ থেকে জানা গেছে, বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) আগামী অর্থবছরে ১৫টি সেক্টরের অনুকূলে উন্নয়ন বাজেট ধরা হচ্ছে মোট ২ লাখ ২১ হাজার ৫৬০ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। আর উন্নয়ন সহায়তা খাতের বরাদ্দ ধরা হচ্ছে ১১ হাজার ৪৬৮ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। সেক্টরভিত্তিক বরাদ্দ ও উন্নয়ন সহায়তা খাতের বরাদ্দ মিলে মোট ২ লাখ ৩৬ হাজার ৭৯৩ কোটি টাকার বাজেট অনুমোদনের অপেক্ষায়।

এ প্রসঙ্গে পরিকল্পনা কমিশনের কার্যক্রম বিভাগের প্রধান খন্দকার আহসান হোসেন বলেন, উন্নয়ন বাজেট চূড়ান্ত করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার এনইসি সভায় এই বাজেটটি উপস্থাপন করা হবে। প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দিলেই এটি চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অগ্রাধিকারভুক্ত মেগাপ্রকল্পগুলোর জন্য যা লাগবে তা-ই দেওয়া হয়েছে। এই প্রকল্পগুলো যথাসময়ে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কাজ করছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগ। এসব প্রকল্প যথাসময়ে শেষ হলে এর সুফল দেশের জনগণ তথা পুরো দেশ পাবে। মেগা প্রকল্পে যদি আরও বরাদ্দের প্রয়োজন হয় তাহলে সংশোধিত এডিপিতে দেওয়া হবে।

আগামী অর্থবছরের উন্নয়ন বাজেটে মেগাপ্রকল্পগুলো যত বরাদ্দ পাচ্ছে- পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণ (২য় সংশোধিত) পদ্মা সেতু প্রকল্প নতুন অর্থবছরে ৩ হাজার ৫০০ কোটি টাকা বরাদ্দ পাচ্ছে। চলতি অর্থবছরে সংশোধিত বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে বরাদ্দ রয়েছে ২ হাজার ৯৯ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরের তুলনায় আগামী অর্থবছর পদ্মা সেতু প্রকল্পে ১ হাজার ৪০১ কোটি টাকা বাড়ছে।

আগামী ২০২১-২২ অর্থবছরে মেট্রোরেলের এমআরটি লাইন-৬, এমআরটি লাইন-১ এবং এমআরটি লাইন-৫ নর্দার্ন রুট এই তিন প্রকল্প মোট বরাদ্দ পাচ্ছে ৭ হাজার ৯৭৪ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরে এই তিন প্রকল্পে বা মেট্রোরেলে মোট বরাদ্দ রয়েছে ৭ হাজার ৪০৩ কোটি ৯২ লাখ টাকা। চলতি অর্থবছরের তুলনায় আগামী অর্থবছরে ৫৭০ কোটি টাকা বেশি বরাদ্দ পাচ্ছে মেট্রোরেল।

পদ্মা সেতু রেল সংযোগ (প্রথম সংশোধিত)

পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পে নতুন অর্থবছরে মোট বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে ৩ হাজার ৮২৩ কোটি ৫১ লাখ টাকা। চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরে প্রকল্পটিতে মোট বরাদ্দ রয়েছে ৫ হাজার ৪৫৪ কোটি ৮৬ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছর থেকে আগামী অর্থবছরে মোট ১ হাজার ৬৩১ কোটি টাকা কম বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে এ প্রকল্পে।

দোহাজারী-রামু-কক্সবাজার এবং রামু-গুনদুম সিঙ্গেল লাইন ডুয়েলগেজ ট্র্যাক নির্মাণ (প্রথম সংশোধিত) এই প্রকল্পটি ২০২১-২২ অর্থবছরে বরাদ্দ পাচ্ছে ১ হাজার ৪২৫ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরের তুলনায় এই প্রকল্পে আগামী অর্থবছরে বরাদ্দ বাড়ছে ৪৩৫ কোটি টাকা। পায়রা গভীর সমুদ্র বন্দরের কার্যক্রম পরিচালনার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো/সুবিধাদি ও উন্নয়ন (সংশোধিত)

এ প্রকল্পে নতুন অর্থবছরে বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে ৩০০ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরে প্রকল্পটিতে বরাদ্দ রয়েছে ৬৫১ কোটি টাকা। এই প্রকল্পেও প্রায় সাড়ে ৩০০ কোটি টাকা বরাদ্দ কমছে।

রূপুপুর বিদ্যুৎকেন্দ্র আগামী অর্থবছরে বরাদ্দ পাচ্ছে ১৮ হাজার ৪২৬ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছর এই প্রকল্পে বরাদ্দ রয়েছে ১০ হাজার ১৬৬ কোটি টাকা। চলতি বছরের তুলনায় আগামী অর্থবছর এ প্রকল্পে বরাদ্দ বাড়ছে ৮ হাজার ২৬০ কোটি টাকা। মাতারবাড়ি ৬০০ মেগাওয়াট আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কোল ফায়ার্ড পাওয়ার প্রজেক্ট

মাতারবাড়ির এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি নতুন অর্থবছরে মোট ৬ হাজার ১৬২ কোটি টাকা বরাদ্দ পাচ্ছে। চলতি বছরে প্রকল্পটিতে বরাদ্দ রয়েছে ৪ হাজার ২০০ কোটি টাকা। বছরের ব্যবধানে এক হাজার ৯৬২ কোটি বেশি বরাদ্দ পাচ্ছে প্রকল্পটি।

কর্ণফুলি নদীর তলদেশে বহুলেন সড়ক টানেল নির্মাণ প্রকল্প

কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ প্রকল্প আগামী অর্থবছরে বরাদ্দ পাচ্ছে ১ হাজার ৬৫০ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরে এ প্রকল্পে বরাদ্দ রয়েছে ১ হাজার ৪২৫ কোটি টাকা। চলতি বছরের তুলনায় আগামী অর্থবছর প্রকল্পটিতে বরাদ্দ বাড়ছে ২২৫ কোটি টাকা।

ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ প্রকল্প

এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের এ প্রকল্প আগামী নতুন অর্থবছরে বরাদ্দ পাচ্ছে ৩ হাজার ২২৭ কোটি টাকা। ২০২০-২১ অর্থবছরে এ প্রকল্পে বরাদ্দ রয়েছে ৭১৫ কোটি টাকা। আগামী অর্থবছরে প্রকল্পটির কাজ পুরোদমে চালাতে বরাদ্দ বাড়ানো হয়েছে প্রায় ২ হাজার ৫১২ কোটি টাকা।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে সেতু নির্মাণ প্রকল্প

এ প্রকল্প জাইকার অর্থায়নে করা হবে। ২০২৩ সালের ডিসেম্বরে প্রকল্পটির কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। নতুন অর্থবছরে প্রকল্পটির অনুকূলে বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে ৩ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছর প্রকল্পটিতে বরাদ্দ রয়েছে ২ হাজার ৫৭ কোটি টাকা। চলতি বছরের তুলনায় আগামী অর্থবছরে প্রায় ১ হাজার ৫২৩ কোটি টাকা বাড়ানো হচ্ছে।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020  E-Kantha24
Technical Helped by Titans It Solution