শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ০৯:৫৩ অপরাহ্ন

ইউনাইটেড পাওয়ারের মুনাফা বেড়েছে দ্বিগুণ

স্টাফ রিপোর্টারঃ করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের মধ্যেও দ্বিগুণ মুনাফা করেছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের কোম্পানি ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড। কোম্পানিটির তৃতীয় প্রান্তিক অর্থাৎ জানুয়ারি-মার্চ সময়ে তার আগের বছরের চেয়ে বেশি মুনাফা করেছে।

সোমবার (৩ মে) অনুষ্ঠিত কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে চলতি হিসাব বছরের তৃতীয় প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা ও অনুমোদনের পর তা প্রকাশ করা হয়। গত এক মাসে ইউনাইটেড পাওয়ারের শেয়ারের দাম ২৯ টাকা বেড়েছে। ৩ মে কোম্পানিটির শেয়ার সর্বশেষ লেনদেন হয়েছে ২৮২ টাকা ৯০ পয়সায়। গত ৪ এপ্রিল শেয়ারটি দাম ছিল ২৫৪টাকা।

কোম্পানি সচিব বদরুল এইচ খান বলেন, সাবসিডিয়ারি প্রতিষ্ঠানগুলোর মুনাফা বেড়েছে। ফলে করোনার মধ্যেও আমাদের ভালো ব্যবসায় হয়েছে। তাই মুনাফাও বেড়েছে।

কোম্পানিটির তথ্য মতে, ২০১৫ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানটিরে চলতি অর্থবছরের জানুয়ারি -৩১ মার্চ, ২০২১ সময়ে শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫ টাকা ৩৩ পয়সা। এর আগের বছর অর্থাৎ ২০২০ সালের জানুয়ারি-মার্চ সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছিল ২ টাকা ৬৬ পয়সা। এককভাবে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৪ টাকা ৭০ পয়সা। যা আগের অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ১ টাকা ৯০ পয়সা।

চলতি অর্থবছরের প্রথম নয় মাস অর্থাৎ জুলাই-২০২০ থেকে মার্চ-২০২১ পর্যন্ত সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৪ টাকা ৮৩ পয়সা। যা এর আগের বছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ৮ টাকা ১৩ পয়সা।

নয় মাসে এককভাবে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৮ টাকা ৯৩ পয়সা। এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৬ টাকা ২ পয়সা। ফলে ৩১ মার্চ পর্যন্ত সময়ে কোম্পানির সমন্বিত শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৫২ টাকা ২০ পয়সা। আর এককভাবে এনএভি দাঁড়িয়েছে ৩২ টাকা ৭০ পয়সা।

বৃহত্ত বাজার মূলধনী এ কোম্পানিটির শেয়ার সংখ্যা হচ্ছে ৫৭ কোটি ৯৬ লাখ ৯৫ হাজার ২৭০টি। এর মধ্যে উদ্যোক্তা-পরিচালকদের হাতে রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির ৯০ শতাংশ শেয়ার। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের হাতে রয়েছে ৭ দশমিক ১৯ শতাংশ, বিদেশি বিনিয়োগকারীদের হাতে দশমিক ৪ শতাংশ, আর সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে রয়েছে মাত্র ২ দশমিক ৭৭ শতাংশ শেয়ার।

৫শ কোটি টাকা ঋণে থাকা প্রতিষ্ঠানটি ২০২০ সালে শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১৪৫ শতাংশ নগদ এবং ১০ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ হিসেবে দিয়েছে। এর আগের বছর ১৩০ শতাংশ নগদ এবং ১০ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ দিয়েছিল। তার আগের বছর অর্থাৎ ২০১৮ সালে শেয়ারহোল্ডারদের ৯০ শতাংশ নগদ এবং ২০ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ দিয়েছিল।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020  E-Kantha24
Technical Helped by Titans It Solution