বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:৫৯ পূর্বাহ্ন

আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের মেয়েরা

স্পোর্টস রিপোর্টার, ই-কণ্ঠ অনলাইন:: বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ফাইনাল ম্যাচে আয়ারল্যান্ডকে ৭ রানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা। ম্যাচের শুরুতে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১২০ রান তুলে টাইগ্রেসরা। জবাবে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১১৩ রান তুলেছে আইরিশরা।

শুরুতে টস জিতে বাংলাদেশকে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানান লরা ডেনলি। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৬ রান করে করেন ওপেনার মুর্শিদা খাতুন ও নিগার সুলতানা জ্যোতি। তৃতীয় উইকেট জুটিতে রুমানা খাতুনকে সঙ্গে নিয়ে দলীয় স্কোর বাড়িয়ে নেন ওপেনার ফারজানা হক পিংকি। ২১ রানে আউট রুমানা। এরপর একপ্রান্তে পিংকি আপনতালে খেলতে থাকলে অন্যপ্রান্তে ব্যাট হাতে দাঁড়াতেই পারছিলে না কেউই। ব্যাট হাতে বক্তিগত অর্ধশতক পূর্ণ করেন পিংকি। আউট হওয়ার পূর্বে করেন ৬১ রান। ৫৫ বলে খেলা তার এই ইনিংসটি সাতটি চারে সাজানো।

এরপরের পাঁচজন ব্যাটারের কেউই দুই অঙ্কের ঘর স্পর্শ করতে পারেননি। ৬ রানে শবানা মোস্তারি, ৯ রানে রিতুমনি, সালমা খাতুন ৪ রানে ও লতা মণ্ডল শূন্যরানে আউট হন। আর ৩ রানে নাহিদা আক্তার অপরাজিত রয়েছেন।

এর আগে সেমিফাইনালে থাইল্যান্ডকে ১১ রানে হারিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূলপর্বের টিকিট নিশ্চিত করে বাংলাদেশ। আজ জিতে বাছাইপর্বে চ্যাম্পিয়ন হয়েই বিশ্বকাপে গেল সালমা-রুমানারা।

স্বপ্ল স্কোরিং ম্যাচে বল হাতে দুর্দান্ত ছিলেন বাংলাদেশের বোলাররা। তাদের বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে শুরু থেকেই চাপে পড়ে আইরিশরা। সেই চাপ কাটিয়ে উঠতে উঠতেই হারের স্বাদ পেয়ে যায় তারা। ব্যাট হাতে আয়ারল্যান্ডের পক্ষে সর্বোচ্চ আরলিনে কেলি অপরাজিত ২৮ রান করেন। এছাড়া ম্যারি ওয়ার্ল্ডন ১৯, এইমেয়ার রিচার্ডসন ১৮, কারা মারি ১৩ ও অধিনায়ক লরা ডিলানি ১২ রান করেন।

বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট নেন রুমানা আহমেদ। এছাড়া দুটি উইকেট পেয়েছেন তিনজন বোলার।

এর আগে ২০১৮ ও ২০১৯ সালে বাছাইপর্বে চ্যাম্পিয়ন হয়ে বিশ্বকাপ খেলেছিল বাংলার মেয়েরা। এছাড়া ২০১৪ সালে স্বাগতিক হিসেবে ও ২০১৫ সালে বাছাইপর্বে রানার্স-আপ হয়ে খেলেছিল বিশ্বকাপে।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020  E-Kantha24
Technical Helped by Titans It Solution