বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০৪:২৯ পূর্বাহ্ন

সাকরাইন উৎসবে আতশবাজি-ফানুস নিষিদ্ধ হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক:: পৌষ মাসের শেষ দিন, ‘পৌষ সংক্রান্তি’ বা ‘সাকরাইন’ উৎসবের দিন বিকট শব্দের আতশবাজি ও ফানুস ওড়ানোয় নিষেধাজ্ঞা জারি করা হবে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) পক্ষ থেকে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের এ তথ্য জানিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

আগামীকাল শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) এ সাকরাইন উৎসব উদযাপন করা হবে। মূলত পুরান ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় নাটাই-ঘুড়ি, আতশবাজি ও ফানুস উড়িয়ে এ উৎসব উদযাপন করা হয়।

তবে ২০২২ সালের ইংরেজি নববর্ষের প্রথম প্রহর (৩১ ডিসেম্বর, ২০২১) উদযাপনের ফলে ঢাকার বিভিন্ন স্থানে আগুনের ঘটনা ঘটায় এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এছাড়াও অনবরত আতশবাজির বিকট শব্দে নগরবাসির ভোগান্তির কথাও বিবেচনায় আনা হয়েছে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা সাকরাইন উৎসবে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার ব্যবস্থা করছি। আর তারা যাতে এমন উদযাপন না করে সেজন্য পুরান ঢাকার বিভিন্ন কমিউনিটির নেতাদের সঙ্গে আমরা কথা বলবো।’

কমিশনার আরও বলেন, ‘মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে এধরনের কার্যক্রম বন্ধ করা কঠিন। আমরা পুরান ঢাকার সর্দারদের নিয়ে বসে এবিষয়ে কথা বলবো, এগুলো বন্ধের উদ্যোগ নিচ্ছি।’

এবারের থার্টিফার্স্ট নাইটে ঢাকাবাসীকে ভুগিয়েছে ফানুস। এই উদযাপন শুরুর কিছু সময়ের মধ্যে ঘটে যায় অনেকগুলো অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা। একসঙ্গে ফায়ার সার্ভিস ও জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এর হট লাইন নম্বরগুলো ব্যস্ত হয়ে পড়ে। মাত্র ২০ মিনিটের মধ্যে সারা দেশ থেকে প্রায় ২০০টি অগ্নিকাণ্ডের খবর আসে ফায়ার সার্ভিস ও ৯৯৯-এর কন্ট্রোল রুমে। ফায়ার সার্ভিস প্রাথমিক তদন্তে জানতে পারে, এসব অগ্নিকাণ্ডের বেশিরভাগ ঘটেছে ফানুসের কারণে। তবে কয়েকটি আগুন আতশবাজির কারণেও লেগেছে।

এছাড়াও আতশবাজির বিকট শব্দে হৃদরোগে আক্রান্ত ৪ মাসের শিশু তানজীম উমায়েরের অসুস্থতা এবং পরবর্তী সময়ে মৃত্যুর পর সবাই এটি নিষিদ্ধের দাবি করছিল।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020  E-Kantha24
Technical Helped by Titans It Solution