শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:১৯ অপরাহ্ন

সন্তানসহ স্বামীর সংসারে রিমা আক্তার

ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি:: পত্র পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর স্বামীর সংসার থেকে বিতাড়িত হয়ে অন্যের বাড়ীতে মানবেতর জীবন যাপন করা সেই অন্তঃস্বত্তা নারী মোছাঃ রিমা ফিরে পেয়েছে তার স্বামীকে, একই সাথে তার কোল আলোকিত করে এক ছেলে সন্তানের জন্ম হয়েছে। ছেলে সন্তান স্বামী-স্ত্রীর ভালোবাসাকে বহুগুণে বাড়িয়ে দিয়েছে।

চাকরির সুবাধে পরিচয়, দীর্ঘদিন প্রেম অতঃপর বিয়ে স্বামী-স্ত্রীর সুখের সংসার ভালোই চলছিলো। গর্ভে সন্তান আসে, এমন সময় স্বামীর সংসার থেকে বিতাড়িত হন মোসাঃ রিমা আক্তার। সন্তান প্রসবের সময় যখন সন্নিকটে তখন তার পাশে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন ময়মনিসংহের ভালুকার জামিরদিয়া এলাকার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মানবিক মানুষ, মাসুদ পারভেজ চাঁন মিয়া, মোঃ রফিক মিয়া, মোঃ সোহেল ও শরাফত উদ্দিন ঢালী।

মা মারা গেছে অনেক দিন বাবা থেকেও নেই, স্বামীর বাড়ীতেও মারধর অপমান ছিল নিত্যদিনের সঙ্গী, কোনোভাবে স্বামীর ঘরে সম্মান পাচ্ছিলেন না রিমা। নির্যাতনের শিকার হয়ে অবশেষে একদিন চলে আসে স্বামীর বাড়ী ছেড়ে, ঠাঁই হয় জামিরদিয়া গ্রামের নুরু ঢালীর বাড়ীতে। স্বামী ও তার পরিবার কোন খোঁজ খবর নেয় না। প্রসবের সময় সন্নিকটে। দিন যত যাচ্ছে আশংকা তত বাড়ছে। এমন সময় ওই নারীর পাশে দাঁড়িয়ে অর্থ সহয়তা প্রদান এবং তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন মাসুদ পারভেজ চাঁন মিয়া, মোঃ রফিক, মোঃ সোহেল, শরাফত উদ্দিন ঢালী। এই খবর শুক্রবার (১১ নভেম্বর) বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ার পর রিমার স্বামী দ্রুত মোঃ রফিক মিয়ার সাথে যোগাযোগ করে পরে শনিবার (১২ নভেম্বর) রাতে সকলের সামনে রেজিস্ট্রি কাবিন করে ঘরে নিয়ে যাবে মর্মে প্রতিশ্রুতি প্রদান করলে ঐ চার ব্যক্তি রিমাকে তার স্বামী মাসুম বিল্লাহ ওরফে আশরাফুলের হাতে তুলে দেন। এ সময় তার কাজের ব্যবস্থাও করে দেন তারা। পরে ওই রাতেই তাদের চার জনের সহায়তায় মাস্টারবাড়ী পপুলার সহপিটালে এসে ভর্তি হন এবং সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে সুস্থ্য ভাবে একটি ছেলে সন্তান প্রসব করেন।

জানা যায়, উপজেলার জামিরদিয়া গ্রামের নুরু ঢালীর বাড়ীর ভাড়াটিয়া, হালুয়াঘাট উপজেলা নাড়াইল গ্রামের আজিজুল হকের মেয়ে মোসাঃ রিমা আক্তারের সঙ্গে গফরগাঁও উপজেলার পাগলা থানার নিগুয়ারী গ্রামের চানু মিয়া (চিনুর) ছেলে মাসুম বিল্লাহ ওরফে আশরাফুলের গত ২ জুন ২০২০ সালে বিয়ে হয়।

নবজাতক সন্তানকে কোলে নিয়ে রীমা বলেন, আমার স্বামীকে আমার কাছে ফিরিয়ে দেয়া এবং আমার সন্তান জন্মদানের দুঃসময়ে যারা আমাকে সহযোগিতা করছেন আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020  E-Kantha24
Technical Helped by Titans It Solution