বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৪৪ অপরাহ্ন

খুলনায় আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীদের সাময়িক বহিষ্কার

খুলনা প্রতিনিধিঃ খুলনায় আওয়ামী লীগের সব বিদ্রোহী প্রার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। শনিবার (১১ সেপ্টেম্বর) দলীয় কার্যালয়ে খুলনা জেলা শাখার বর্ধিত ও কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সভায় সর্বসম্মতিক্রমে আসন্ন ২০ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিতব্য ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর (নৌকার) বিপক্ষে নির্বাচনে অংশগ্রহণকারীদের দলীয় পদ হতে সাময়িক বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

এরা হলেন- খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হায়দার মোড়ল, কয়রা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিজয় কুমার সরদার, সহ-সভাপতি আমির আলী গাঈন, দিঘলিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মফিজুল ইসলাম ঠান্ডু মোল্যা, পাইকগাছা থানা আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মজিদ গোলদার, সেনহাটী ইউনিয়নে গাজী জিয়াউর রহমান, কয়রা উপজেলার বেদকাশী ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ নেতা মোড়ল আছের আলী, বটিয়াঘাটা উপজেলা আওয়ামী লীগ সদস্য শেখ মো. আসাবুর রহমান, দাকোপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য সঞ্জয় মোড়ল, বানিসান্তা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সদস্য শুভাংশু বৈদ্য, কামারখোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সদস্য সমরেশ রায়সহ সব বিদ্রোহী প্রার্থী।

একইসঙ্গে আগামী তিন দিনের মধ্যে কেন তাদের স্থায়ী বহিষ্কার করা হবে না মর্মে কারণ দর্শানোর জবাব জেলা দফতরে জমা দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। এ ছাড়া আাওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের কোনো নেতাকর্মী বিদ্রোহী প্রার্থীদের পক্ষে কাজ করে থাকলে তাদের আগামী তিন দিনের মধ্যে নৌকার পক্ষে কাজ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অন্যথায় তারাও সাময়িক বহিষ্কার হবেন বলে সভা থেকে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়।

সভায় নেতারা বলেন, আগামী ২০ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিতব্য ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীকে জয় লাভ করাতে হবে এর কোনো বিকল্প নেই। নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর বিপক্ষে যেসব নেতা-কর্মী অবস্থান নেবেন তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

তারা আরও বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। এই উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে হলে আগামী নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করতে হবে।

এ ছাড়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও অন্যান্য নেতৃবৃন্দের অংশগ্রহণে উপজেলাভিত্তিক বিশেষ বর্ধিত সভা করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১৪ সেপ্টেম্বর সকালে কয়রায়, বিকেলে পাইকগাছায়, ১৫ সেপ্টেম্বর দাকোপে, ১৬ সেপ্টেম্বর বটিয়াঘাটায় এবং ১৭ সেপ্টেম্বর দিঘলিয়ায় বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হবে।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ। সভা পরিচালনা করেন খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সস্পাদক অ্যাডভোকেট সুজিত অধিকারী।

সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- জাতীয় কমিটির সদস্য সাবেক সংসদ সদস্য মোল্যা জালাল উদ্দিন, অ্যাড. সোহরাব আলী সানা, অ্যাড. কাজী বাদশা মিয়া, অ্যাড. এম এম মুজিবর রহমান, এ এফ এম মাকসুদুর রহমান, অ্যাড. রবীন্দ্রনাথ মন্ডল, নারায়ণ চন্দ্র চন্দ এমপি, আব্দুস সালাম মুর্শিদী এমপি, আক্তারুজ্জামান বাবু এমপি, অধ্যক্ষ দেলোয়ারা বেগম, অধ্যক্ষ এ বি এম শফিকুল ইসলাম, বি এম এ ছালাম, মোস্তফা কামাল খোকন, অধ্যাপক অ্যাড. নিমাই চন্দ্র রায়, মো. রফিকুর রহমান রিপন, মো. সরফুদ্দিন বিশ্বাস বাচ্চু, মো. কামরুজ্জামান জামাল, অ্যাড. ফরিদ আহমেদ, সরদার আবু সালেহ, ইঞ্জিনিয়ার প্রেম কুমার মন্ডল, জোবায়ের আহম্মেদ খান জবা, এম এ রিয়াজ কচি, অ্যাড. নব কুমার চক্রবর্তী, অজয় সরকার, শ্রীমন্ত অধিকারী রাহুল প্রমুখ।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020  E-Kantha24
Technical Helped by Titans It Solution