বুধবার, ০৭ Jun ২০২৩, ০২:৪৪ পূর্বাহ্ন

আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি নাশকতা ঘটিয়েছে কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ই-কণ্ঠ অনলাইন ডেস্ক:: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি গুলিস্তানের সিদ্দিকবাজার, চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড, কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটিয়েছে কিনা খতিয়ে দেখছে সরকার। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এগুলো গভীরভাবে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

বুধবার (৮ মার্চ) সকালে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলটির কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে মহানগর, সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতীম সংগঠনের নেতাদের এক যৌথ সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী যখন দেশের কাজে বাইরে ঠিক, সেই সময় দেশে কয়েকটি অনভিপ্রেত ঘটনা ঘটনা ঘটে গেছে। এটা স্বাভাবিক দুঘর্টনা নাকি নাশকতা, সেটা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সরকারের পক্ষ থেকে গভীরভাবে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এই নিয়ে কারও মাথা ব্যাথার প্রয়োজন নাই।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বিবৃতির বিষয়ে তিনি বলেন, মির্জা ফখরুল হুট করে একটা বিবৃতি দিয়েছেন। তার বিবৃতিতে এই ধরনের একের পর এক ঘটনাকে রহস্যজনক বলা হয়েছে। আমরা তার সঙ্গে একমত। এই সময়ে দেশে এই ধরনের ঘটনা রহস্যজনক। এই রহস্যের ভেতরের বিষয়টি কী সেটা আমাদের খতিয়ে দেখতে হবে।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, যারা আন্দোলনে ব্যর্থ হয়েছে, তারা নাশকতার পথ খুঁজছে কিনা, নাশকতার পথে হাটছেন কিনা সেটাও আমাদের খতিয়ে দেখতে হবে। এসব রহস্যজনক ঘটনার পেছনে কোনও ব্যক্তি বা সংস্থা বা দলের সংশ্লিষ্টতা আছে কিনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও বলেছেন, বিষয়টি তারা সিরিয়াসলি খতিয়ে দেখছেন।

ঢাকার সিদ্দিকবাজার, চট্টগ্রামে সীতাকুণ্ড, কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে তিনি বলেন, বিএনপি আন্দোলনে ব্যর্থ হলে আগুন সন্ত্রাসে লিপ্ত হয়। এই ব্যাপারে আমরা সর্তক আছি।

আওয়ামী লীগের কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে

আওয়ামী লীগের চলমান কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিরোধীদল বলছে আমরা পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি দিচ্ছি। কিন্তু আমরা তা করছি না, আমরা শান্তি সমাবেশ করছি। বিএনপির অশান্তির আশঙ্কায় এ সমাবেশ করছি। তারা অশান্তি সৃষ্টি করতে পারে। সেজন্য ক্ষমতা থাকায় জনগণের জানমালের নিরাপত্তার দায়িত্ব আমাদের। আমরা জনগণের পাশে আছি।

তিনি বলেন, ২০১৩-১৪ সালে দেখেছি বিএনপি যখন আন্দোলনে ব্যর্থ হয় তারা আগুন সন্ত্রাসের মেতে উঠে। সে সময় তারা ভাঙচুর অগ্নিসন্ত্রাস করেছে। পুড়িয়ে মানুষ মেরেছে। এব্যাপারে নিজেরা সতর্ক আছি, দেশবাসী এবং জনগণকে আমরা সতর্ক করছি।

ববির রাজনৈতিক সক্রিয়তার বিষয়ে আমার জানা নেই

রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ববির শ্রদ্ধা নিবেদনে বিষয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা দেশে নেই। ঐতিহাসিক ৭ মার্চ আমাদের ইতিহাসে একটা গুরুত্বপূর্ণ দিবস। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে এদিন পরিবারের পক্ষ থেকে রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ববি ফুল দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী দেশে ছিলেন না, কিন্তু দিনটা কতটা গুরুত্ব দেন এটা তারই প্রমাণ। এর সঙ্গে রাজনৈতিক সক্রিয়তার কোনও বিষয় আছে বলে আমার জানা নেই।

যৌথ সভায় আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য কাজী জাফর উল্লাহ, ডা. মহিউদ্দিন জালাল, আব্দুর রহমান, অ্যাড. কামরুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, মির্জা আজম, আফজাল হোসেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জি. আবদুস সবুর, প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক আব্দুস সোবহান গোলাপ, দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ, উপদফতর সম্পাদক সায়েম খান।

এছাড়া ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক এসএম মান্নান কচি, যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ, সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল, কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক উন্মে কুলসুম স্মৃতি, মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকী, ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন, সাধারন সম্পাদক শেখ ইনান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020  E-Kantha24
Technical Helped by Titans It Solution