সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৫:৫০ অপরাহ্ন

অতীতের তুলনায় ‘ক্রসফায়ারে’র সংখ্যা কমে এসেছে: বিদায়ী মহাপরিচালক

নিজস্ব প্রতিবেদক, ই-কণ্ঠ অনলাইন:: র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) বিদায়ী মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেছেন, যেখানে প্রয়োজন হয়, ঠিক সেখানেই আমরা শক্তি প্রয়োগ করি। অতীতের তুলনায় ‘ক্রসফায়ারে’র সংখ্যা কমে এসেছে।

বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকালে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

র‌্যাব মহাপরিচালক বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান আমরা যেভাবে করি, এটা কিন্তু একটা বৈশ্বিক যুদ্ধ বটে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী যেটা করছে, কারাগারে যেসব আসামি আছে তাদের অধিকাংশ মাদকের আসামি। এটা একটা সামাজিক সমস্যা হিসেবে দাঁড়িয়েছে। যার যার জায়গা থেকে দায়িত্বশীল আচরণ না করলে…আমার সন্তানের এখন ঘরে থাকার কথা, সে বাইরে গেছে, কোথায় গেছে? সন্তানের বিষয়ে আমার দায়িত্ব আছে। শিক্ষকের দায়িত্ব আছে। জনপ্রতিনিধির দায়িত্ব আছে। আমরা সবাই মিলে কাজ করছি। আমরা যেখানে খবর পাচ্ছি, ধরছি। এটা নিয়ন্ত্রণে নেই এ কথা বলার সুযোগ নেই। আমরা যদি ব্যবস্থা না নিতাম, জেলখানায় এত আসামি কীভাবে যেত!

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার কারণে ‘ক্রসফায়ার’ কমে গেছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা আমরা মনে করি না। যেখানে প্রয়োজন হয়, ঠিক সেখানেই আমরা শক্তি প্রয়োগ করি। যেখানে প্রয়োজন হয় না, সেখানে আমরা বিন্দুমাত্র শক্তি প্রয়োগ করার…এই দেশের নাগরিক, বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, তোমরা এই দেশের পুলিশ, তোমরা এই দেশের নাগরিক। ল’ এনফোর্সেস এ দেশের, আমরা কেন আমাদের দেশের লোকের বিরুদ্ধে অবস্থান করবো! যখন নিতান্ত আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির কারণে…যখন আমি আক্রান্ত হই, তখন পলায়ন রোধ, মাদক-অস্ত্র উদ্ধারের জন্য, মানবপাচার বন্ধ করার জন্য; মাদক-অস্ত্র-মানবপাচারকারী যখন আক্রমণ করে তখন বাংলাদেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী যে ব্যবস্থা নেওয়া দরকার সেই ব্যবস্থা নিয়ে থাকি। যেহেতু আমাদের প্রশিক্ষণ আছে, সে অনুযায়ী আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করে থাকি। আইন যে ক্ষমতা দিয়েছে সেই সীমা বিন্দুমাত্র অতিক্রম করতে আমরা দেই না।

চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, গত আড়াই বছর আমরা দায়িত্ব পালন করেছি। র‌্যাব তার স্বাভাবিক দায়িত্ব পালন করেছে। যে কোনো কাজ আমরা যখন করি, আইনানুগ প্রক্রিয়া অবলম্বন করে আমরা কাজটি করি। যখন কোনো ঘটনা সংঘটিত হয়, আমাদের ওপর গুলি বর্ষণের কথাই বলি; অপরাধীরা যে কত ‘নটোরিয়াস’, অপরাধ সংঘটনের জন্য সামনের সব বাধা অতিক্রম করে তারা অপরাধ সংঘটন করতে চায়। আমরা যখন তাদের সামনে বাধা হয়ে দাঁড়াই, তখন তারা সর্বশক্তি দিয়ে আমাদের প্রতিহত করে তাদের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড চালিয়ে যেতে চায়। আমাদের সঙ্গে ওই অবস্থা যখনই সংঘটিত হয়, এরপরও আমাদের অনেক অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা সংঘটিত হয় সঙ্গে সঙ্গে কিন্তু একটা জিনিস লক্ষ করবেন, আমরা কিন্তু ঘটনাস্থলে থাকি না। ঘটনাস্থলে থানা পুলিশ আসে। ম্যাজিস্ট্রেট আসেন, সুরতহাল করেন। এরপর মর্গে নেওয়া হয়, ময়নাতদন্ত করা হয়। মামলা হয়, পুলিশ তদন্ত করে। আমাদের স্বাধীন বিচার ব্যবস্থা, উভয়পক্ষের যুক্ততর্ক থেকে বিচারক তার সুচিন্তিত রায় দেন। ঘটনার পরে আমাদের কোনো ভূমিকা থাকে না। অন্যান্যরা সরকারের, আপনারাও (গণমাধ্যম) প্রতিনিয়ত মনিটর করেন। সেখানে র‌্যাবের ভূমিকা কতটুকু আছে সেটা আমার কাছেও প্রশ্ন। স্বচ্ছতার সঙ্গে এটা সম্পাদন হয়ে থাকে। এ ধরনের ঘটনায় আমাদের লোক আহত হয়েছে, আমাদের লোকের প্রাণহানী হয়েছে। অনেকের অঙ্গহানী হয়েছে।

আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পুলিশের ৩১তম মহাপরিদর্শক (আইজিপি) হিসেবে দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020  E-Kantha24
Technical Helped by Titans It Solution